ঠাকুরগাঁও জেলা পুলিশের মাদকবিরোধী অভিযানে মাদকসহ গ্রেফতার-১৩

0
3
আমাদের ফেইসবুক পেইজ এ লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন।

আব্দুর রাজ্জাক বাপ্পী, ঠাকুরগাঁও জেলা প্রতিনিধিঃ গত ১০ দিনে পুলিশের মাদকবিরোধী অভিযানে পৃথক ঘটনায় ১৩ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করা হয়। এ ঘটনায় ঠাকুরগাঁও সদর থানায় ১০টি মামলা দায়ের করা হয় এবং উল্লেখিত ১৩ জন মাদক কারবারীকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরন করা হয়।

ঠাকুরগাঁও পুলিশ সুপার উত্তম প্রসাদ পাঠক জানান, শান্তি, শৃঙ্খলা, নিরাপত্তা ও প্রগতি বাংলাদেশ পুলিশের মুল লক্ষ্য। ঠাকুরগাঁওয়ের মানুষের জন্য পুলিশ দিবারাত্রি কঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছে। জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে মাদকবিরোধী অভিযান অব্যাহত রয়েছে। গত ১০ দিনের অভিযানে প্রায় ১৩ জন মাদক ব্যবসায়িকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এর মধ্যে গত ২২ আগষ্ট সদর উপজেলার দৌলতপুর খোচাবাড়ী থেকে ১৪ পিস ট্যাপেনটাডল/ট্যাপল ট্যাবলেটসহ মো: সোহেল রানা (২৫) কে গ্রেফতার করা হয়। এ ঘটনায় সদর থানার এসআই (নি:) মো: মামুনুর রশিদ পিপিএম সেবা বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন। ২১ আগষ্ট পৌর শহরের গোবিন্দনগর মসজিদ সংলগ্ন এলাকায় ১৬ পিস ইয়াবাসহ মো: জনি (৩০) কে গ্রেফতার করা হয়। তার বিরুদ্ধে সদর থানার এসআই (নি:) মো: কামাল হোসেন বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন। ২০ আগষ্ট পৌর শহরের মুন্সিপাড়া মহল্লায় অভিযান চালিয়ে ওই মহল্লার মৃত বাবু হোসেনের স্ত্রী মোছা: আসমা বেগম (৩০) কে ১৫ পুরিয়া হিরোইনসহ গ্রেফতার করা হয়। এ ঘটনায় সদর থানার এসআই (নি:) মো: আতাউর রহমান বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন। একই দিনে সদর উপজেলার সালন্দর ইউনিয়নের ইয়াকুবপুর গ্রামে মোছা: রিনা বেগম (৩৫) এর বাড়ি ঘেড়াও করে ১শ গ্রাম গাঁজা সহ গ্রেফতার করা হয়।

পুলিশ সুপার আরও জানান, ১৮ আগষ্ট সদর উপজেলার শীবগঞ্জ বাজারের মাছ হাটির পার্শ্বে একটি পরিত্যাক্ত ট্রয়লেটের ভেতর থেকে মো: মামুন ইসলাম ওরফে মন্টু (২৫) ও দবিদুর রহমান (৫০) কে ৪০ লিটার চোলাই মদ ও ৪ বোতল ফেনসিডিলসহ গ্রেফতার করা হয়। এ ঘটনায় সদর থানার এসআই (নি:) মো: মামুনুর রশিদ পিপিএম সেবা একটি মামলা দায়ের করেন। একই দিনে সদর উপজেলার জামালপুর মধ্য পারপুগী (শীবগঞ্জ বাজার) এলাকায় অভিযান চালিয়ে ফয়সাল হোসেন (২৫) কে ৩০ লিটার চোলাই মদসহ গ্রেফতার করা হয়। এ ঘটনায় সদর থানার এসআই (নি:) চন্দন কুমার ঘোষ বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন। ১৭ আগষ্ট সদর উপজেলার রোড বালিয়াডাঙ্গী মোড়ে মেসার্স ইমু ইলেক্ট্রনিক্স এর দোকানের সামনে থেকে ২০ পুরিয়া গ্রাঁজাসহ মো: হাবিবুর রহমান হাবিব (২৮) ও মো: রবিউল ইসলাম (২০) কে গ্রেফতার করা হয়। এ ঘটনায় সদর থানার এসআই (নি:) মো: মানিক হোসেন বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন। একই দিনে সদর উপজেলার সালন্দর চৌধুরী হাট চাষী কাবের সামনে থেকে ১৪ পিস ট্যাপেনটাডল ট্যাবলেট সহ মো: বিদ্যুৎ (২২) কে গ্রেফতা করে পুলিশ। এ ঘটনায় সদর থানার এসআই (নি:) খোকা চন্দ্র রায় বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন। ১৬ আগষ্ট সদর উপজেলার জগন্নাথপুর হাজীফাড়া চেদ্দহাত কালিতলা হতে জাঠিভাঙ্গা পুকুরগামী কাচারাস্তা থেকে মো: রায়হান (২৫) ও মো: রনি মিয়া (২০) কে ১০ পিস ট্যাপেনটাডল ট্যাবলেট ও ১৬ পুরিয়া গাঁজাসহ গ্রেফতার করা হয়। এ ঘটনায় সদর থানার এসআই (নি:) মো: আতাউর রহমান বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন। একই দিনে সালন্দর তেলীপাড়া গ্রামে মাদকবিরোধী অভিযানে মো: সুমন (২২) কে ১৯ টি ট্যাপেনটাডল ট্যাবলেট সহ গ্রেফতার করা হয়। এ ঘটনায় সদর থানার এসআই (নি:) মো: নুরজামাল বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন।

পুলিশ সুপার উত্তম প্রসাদ পাঠক বলেন, মাদকের সর্বনাশা ছোবল দেশের তরুন সমাজকে ধ্বংসের দিকে নিয়ে যাচ্ছে। একটি সুস্থ ও সুন্দর সমাজের জন্য মাদক নির্মুল করতে হবে। তা করতে জেলা পুলিশ সর্বাত্মক কাজ করে যাচ্ছে পাশাপাশি প্রয়োজন ব্যক্তিগত ও সামাজিক সচেতনতা এবং দৃঢ় প্রতিরোধ ব্যবস্থা। এ কারনে সকলের সহযোগিতা পয়োজন।

আমাদের ফেইসবুক পেইজ এ লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন।