পটুয়াখালীর বাউফলে রাতের অন্ধকারে ঘরের সিঁদ কেটে (৭)বছরের এক শিশু চুরি

0
23
আমাদের ফেইসবুক পেইজ এ লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন।

কাইয়ুম হোসেন, বাউফল পটুয়াখালী:-
পটুয়াখালীর বাউফলে রাতের অন্ধকারে ঘরের সিঁদ কেটে রিসান (৭) নামের এক শিশু চুরি হয়।
বাউফল উপজেলার ১নং কাছিপাড়া ইউনিয়নের কারাখানা গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে।
স্হানীয় সূত্রে জানা যায়, কারখানা গ্রামের বাসিন্দা হাবিবুর রহমান তার ছেলে রিসানকে নিয়ে শ্বশুর কুদ্দুস আকনের বাড়িতে দীর্ঘ দিন যাবত বসবাস করতেন।
গত ৬ই আগস্ট শনিবার রাতে কুদ্দুস আকনের ঘরের সিঁদ কেটে রিসান ও তাদের ব্যবহৃত সাথে থাকা একটি মোবাইল ফোন নিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা।
ঘটনার পর জানাজানি হলে এলাকায় সাধারণ মানুষের মধ্যে হতাশা সৃষ্টি হয়। পরে স্হানীয় লোকজন সহ শিশুর স্বজনরা বিষয়টি বাউফল থানায় অবহিত করেন।
এবং পরে কাছিপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম তালুকদারও ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিদর্শন করেন এবং চুরি হওয়া শিশুর খোঁজ খবর নেওয়ার জন্য বিভিন্ন মহলে ফোন দেন।
উক্ত ঘটনার সংবাদ প্রাপ্তি সাথে সাথে অফিসার ইনচার্জ বাউফল থানা, পটুয়াখালীর নের্তৃত্ত্বে একটি চৌকস পুলিশ দল ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ঘটনার সত্যতা যাচাই পূর্বক একাধিক টিমে বিভক্ত হয়ে সম্ভাব্য স্থান সমূহে অভিযান পরিচালনা শুরু করে। বাউফল থানা পুলিশ উধ্বর্তন কর্তৃপক্ষের সাথে সার্বক্ষনিক যোগাযোগ অব্যাহত রাখে।বরিশাল জেলার বাকেরগঞ্জ থানাধীন দূর্গাপাশা ইউনিয়নের পাটকাঠি খেয়াঘাট নামক স্থান হতে অবহৃত শিশু রিসান(৮)’কে উদ্ধারসহ অপহরন ও মুক্তিপনদাবী কারী মোঃ জাকির হোসেন (৪৫), পিতা-মোঃ হালিম ডাক্তার, সাং-বাজেমহল, ৩নং ওয়ার্ড, এ/পি-কারখানা, থানা-বাউফল, জেলা-পটুয়াখালী নামে এক ব্যক্তিকে স্থানীয় জনগনের সহায়তায় গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।
আটককৃত ব্যক্তিকে ঘটনার বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করিলে সে উক্ত ঘটনায় স্বীকারোক্তি প্রদান করেন। আসামী জাকির হোসেন এর তথ্য মতে জানা যায় যে, অবহৃত শিশু রিসান (৭) এর নানা কুদ্দুস আকন এর সাথে দীর্ঘদিন যাবৎ কাচামালের ব্যবসা করে আসিতেছেন। গত কয়েক দিন পূর্বে কুদ্দুস আকন নিকট আসামী জাকির হোসেন ১,০০,০০০/- টাকা ধার চায়। কুদ্দুস আকন ৫০,০০০/- টাকা ধার দিলেও বাদী ৫০,০০০/- না দেওয়ায় কুদ্দুস আকন এর নাতী রিসান (৮)’কে অপহন করিয়া মুক্তিপন দাবী করে।
অপহৃত শিশু রিসান (৮) এর মা মোসাঃ হাওয়া বেগম বাদী হয়ে গ্রেফতারকৃত আসামী মোঃ জাকির হোসেন এর বিরুদ্ধে অপহরন মুক্তিপনদাবী ও চুরির অপরাধে এজাহার দায়ের করিলে বাউফল থানার অফিসার ইনচার্জ, বাউফল থানায়-নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ সালের (সংশোধনী/২০০৩) এর ৭/৮ তৎসহ ৪৫৭/৩৮০ পেনাল কোড রুজু করেন।
এবিষয় বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আল মামুন বলেন _বিভিন্ন প্রচেষ্টার মাধ্যমে চোরকে ধরতে সক্ষম হয়েছি।
ইতিমধ্যে তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। আগামীকাল কোর্টের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরন করা হবে।

আমাদের ফেইসবুক পেইজ এ লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন।