পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলায় প্রশাসনের ১৪৪ ধারা জারি

0
16
আমাদের ফেইসবুক পেইজ এ লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন।

কাইয়ুম হোসেন, বাউফল প্রতিনিধি :-
বাউফল উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলনের আহবান করাকে কেন্দ্র করে উপজেলায় ১৪৪ ধারা জারি করে হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আল-আমিন ১৪৪ ধারা জারি করেন। আজ শুক্রবার এ আদেশ কার্যকরে শহরে পুলিশের টহলসহ প্রতিটা মোড়ে চেক পোষ্ট বসানো হয়েছে।

অফিস আদেশে বলা হয়েছে, ৬ মে সকাল ১০টায় বাউফল উপজেলা আওয়ামী লীগ অফিসে সংবাদ সম্মেলন আহবান করেন সাধারন সম্পাদক আব্দুল মোতালেব হাওলাদার। একই সময়ে একই স্থানে দলের দফতর সম্পাদক ফরিদ আহমেদ ও পাল্টা সংবাদ সম্মেলনের আহবান করেন। এই একই সময় একই স্থানে দুই গ্রুপ সংবাদ সম্মেলন আহবানের ফলে শান্তি শৃংখলা ভঙ্গ হতে পারে আশংকা করে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়। এই আদেশ আজ শুক্রবার রাত দশটা পর্যন্ত কার্যকর থাকবে।
এরপ্রেক্ষিতে ভ্যানু পরির্বতন করে আওয়ামী লীগের একাংশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহিম ফারুকের বাসার চত্বরে সাংবাদ সম্মেলন করেন। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য প্রদান করেন আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক ফরিদ আহমেদ। সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন দলের সহসভাপতি ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোসারফ হোসেন খান। অপর দিকে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল মোতালেব হাওলাদার সকাল ১১টায় বাউফল প্রেসক্লাবে পৃথক ভাবে সংবাদ সম্মেলন করেন। উভয়ের বক্তব্যে একে অপরকে দোষারোপ করেন। এক গ্রুপ দলের সভাপতি আসম ফিরোজ এমপিকে ব্যাঙ্গ করে বক্তব্য প্রদানসহ তাকে দলীয় কার্যালয় ডুকতে না দেয়ার হুমকির প্রেক্ষিতে দলের সাধারণ সম্পাদক আবদুল মোতালেব হাওলাদারের অপসারণ দাবি করেন। অপর দিকে সাধারাণ সম্পাদক আবদুল মেতালেব হাওলাদার দলের সভাপতি আসম ফিরোজের বিরুদ্ধে স্বেচ্ছাচারিতা, জাতির জনকের ছবি ভাংচুর ও রাজাকারের ছেলে নেছার উদ্দিন জামালকে দলীয় পদ দেয়ার অভিযোগ করেন। তিনি আসম ফিরোজ এমপিকে দলীয় শৃঙ্গলা মেনে সাংগঠনিক কার্যক্রম পরিচালনার অনুরোধ করেন।

আমাদের ফেইসবুক পেইজ এ লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন।