পশ্চিম ইলিশায় জমিজমা বিরোধের জেরধরে ৩ জনকে পিটিয়ে জখম

0
12
আমাদের ফেইসবুক পেইজ এ লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন।

ভোলা প্রতিনিধি!
ভোলার পশ্চিম ইলিশায় জমিজমা বিরোধের জেরধরে নারীসহ ৩জনকে পিটিয়ে যখম করেছে প্রতিপক্ষরা। হামলায় আহতদেরকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। হামলাকারীরা আহতদের কাছ থেকে স্বর্ণালংকার ও নগদ অর্থ ছিনিয়ে নিয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) রাত ১১টার দিকে সদর উপজেলার পশ্চিম ইলিশা ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের চরপাতা বান্দেরপাড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে ভুক্তভোগী পরিবার সূত্রে জানা গেছে।
আহত ভুট্ট ব্যাপারী জানান, একই এলাকার ভূমিদস্যু সন্ত্রাসী মোঃ জাহাঙ্গীর গংদের সাথে ভুট্ট ব্যাপীর দীর্ঘদিন ধরে জমিজমা নিয়ে বিরোধ চলে আসছিলো। এই বিরোধকে কেন্দ্র করে জাহাঙ্গীর বাহিনী একাধিকবার ভুট্ট ও তার পরিবারের উপর হামলা মারধর করেছে। স্থানীয়রা একাধিকবার শালিশে বসলেও তা কর্ণপাত করছে না জাহাঙ্গীর বাহিনী। বৃহস্পতিবার রাতে ভুট্ট ব্যাপারী তার মাছের ঘেরে গেলে খবর পেয়ে ভুমিদস্যু জাহাঙ্গীর, ইসমাইল, ইসরাফিল, ফরিদ দেশীয় ধারালো অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে মোঃ ভুট্টর উপর হামলা চালায়। জাহাঙ্গীর বাহিনী ভুট্টকে এলোপাথারী কুপিয়ে জখম করে। আত্মরক্ষার্থে ভুট্ট পার্শ্ববর্তী হাওলাদার বাড়ীতে গিয়ে আত্মচিৎকার দেয়। ভুট্টর আত্মচিৎকার শুনে তার বোন রিনা বেগম, ভাই মোঃ রিপন এগিয়ে আসে। এসময় জাহাঙ্গীর বাহিনী রিনা বেগম ও রিপনকেও কুপিয়ে ও পিটিয়ে জখম করে। বিনার বেগমকে কপিয়ে রাস্তার পাশে ফেলে চলে যায়। পরে লোকজন প্রায় ঘন্টাব্যাপী তল্লাসি চালিয়ে রিনা বেগমকে গুরুতর জখম অবস্থায় রাস্তার পাশ থেকে উদ্ধার করে। স্থানীয় লোকজন ভুট্ট, রিনা বেগম ও রিপনকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে আহতদের পরিবার সূত্রে জানা গেছে।
এ ব্যাপারে অভিযুক্ত জাহাঙ্গীর গংদের সাথে একাধিকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করে কাউকে পাওয়া যায়নি।
স্থানীয় ইব্রাহিম মেম্বার বলেন, আমি মারধরের বিষয়টি শুনতে পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে ভুট্ট, রিনা ও রিপনকে আহত অবস্থায় দেখেছি। স্থানীয়রা তাদেরকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে।
ইউপি চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন বলেন, ভুট্ট ব্যাপারীর সাথে জাহাঙ্গীর গংদের সাথে দীর্ঘদিন ধরে জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। এর আগেও দুই পক্ষের মধ্যে মারধরের ঘটনা ঘটে। বৃহস্পতিবার ভুট্টর পরিবারের হামলার ঘটনাটি শুনেছি। দুই পক্ষ বিষয়টি নিয়ে আসলে স্থানীয়ভাবে বিচারের ব্যবস্থা করবো।

আমাদের ফেইসবুক পেইজ এ লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন।