পূর্বের শত্রুতার জেরধরে হামলার শিকার হন মাহাবুব আলম মাহী

0
12
আমাদের ফেইসবুক পেইজ এ লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন।

বোরহানউদ্দিন প্রতিনিধি-!
বোরহানউদ্দিন উপজেলার টবগী ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডে তার ফ্যামিলি সহ বসবাস করেন -সাংবাদিক মেহেদী হাসান মোর্শেদ।

সাংবাদিক মেহেদী হাসান মোর্শেদ অভিযোগ করে জানান-

গত ২০-০৮-২০২১ ইং তারিখ সন্ধ্যা ৭ ঘটিকার সময় মোঃ মাহাবুব আলম মাহী কিছু কেনাকাটার জন্য মনিরাম বাজার গেলে জাহাঙ্গীরের ছেলে মোঃ জিহাদ (২২)পূর্বের শত্রুতার জের ধরে জাফরের চায়ের দোকানের সাইডে নিরিবিলি জায়গায় নিয়ে এলোপাতাড়ি মাইরধর করে জখম করেন জাহাঙ্গীরের ছেলে জিহাদ।

মাহাবুব আলম মাহীর চিৎকার শুনে লোকজন এসে মাহীকে রিক্সা করে বাড়ীতে পাঠিয়ে দেন। ঘটনাটি সাংবাদিক মোর্শেদ জানতে পেরে রাত আনুমানিক ১১ টার দিকে জাহাঙ্গীরের বাড়িতে যান, সেইখানে গিয়ে জাহাঙ্গীরের ভাই আলমগীর ও বাড়ীর অন্যান্য ব্যক্তবর্গকে জানান। জাহাঙ্গীর কথার কাটাকাটির এক পর্যায়ে সাংবাদিক মোর্শেদের উপর চওড়া হয়ে মোর্শেদের মোবাইল নিয়ে টানাহেঁচড়া করেন।এবং গালমন্দ করলে বাড়ির লোকজন মোর্শেদকে বুঝিয়ে পাঠিয়ে দেয়। পরদিন সকাল ১০ ঘটিকার সময় মনিরাম বাজার বসে। সুমন, রাসেল সহ স্হানীয় লোকজন ঘটনাটি শুনার পর দু’পক্ষকে মিলমিশ করিয়ে দেন। এখানেই শেষ না গতকাল সাংবাদিক মোর্শেদের ছেলে একা হাঠতে বের হলে জিহাদের সাথে দেখা হয়, জিহাদ বলে তোরে মারছি, কি হয়েছে, তবে তোরে আবারও একা কোথায় নিরিবিলি পাইলে ধরমু এই বলে হুমকি দেয়।

জিহাদের বাবা জাহাঙ্গীর আবুল মিয়ার বাজারে চায়ের দোকানে বসে লোকজনের সাথে নানারকম কথা বলে বেড়ায়। স্হানীয় লোকজনকে জানাইলে তারা ব্যাপারটা এড়িয়ে যান।

আমার ছেলে মাহীর নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে, আজ ২৩-০৮-২০২১ তারিখে বোরহানউদ্দিন থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করি।

আমাদের ফেইসবুক পেইজ এ লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন।