বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে ভোলায় ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

0
66
আমাদের ফেইসবুক পেইজ এ লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন।

ভোলা প্রতিনিধি.
বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৭৪ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ভোলায় শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়া আলোচনা সভা ও র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়। আজ মঙ্গলবার সকালে শহরের উকিলপাড়ায় জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হাসিব মাহমুদ হিমেল আনুষ্ঠানিকভাবে কর্মসূচির উদ্বোধন করেন।
এ সময় বক্তব্য রাখেন, ভোলা জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আমিনুল ইসলাম ইভান, ইব্রাহিম উজ্জল ও মো.কিরণ।সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদি হাসান জিহাদ ও আরাফাত চৌধুরী। সহ-সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান সিয়াম। ভোলা সদর উপজেলার সাধারণ সম্পাদক রাশেদুজ্জামান হ্যাভেনসহ অন্যানরা।
অনুষ্ঠানে বক্তারা জানান, বাংলা, বাঙালির স্বাধিকার অর্জনের লক্ষ্যে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নির্দেশনায় ১৯৪৮ সালের ৪ জানুয়ারি বাংলাদেশ ছাত্রলীগের জন্ম হয়।
শিক্ষা-শান্তি-প্রগতির স্লোগানকে ধারণ করে জন্মের প্রথম লগ্ন থেকেই ভাষার অধিকার, শিক্ষার অধিকার, বাঙালির স্বায়ত্তশাসন প্রতিষ্ঠা, দুঃশাসনের বিরুদ্ধে গণঅভ্যুত্থান, সর্বোপরি স্বাধীনতা ও স্বাধিকার আন্দোলনের ছয় দশকের সবচেয়ে সফল সাহসী সারথি বাংলাদেশ ছাত্রলীগ।
উপমহাদেশের সর্ববৃহৎ ও প্রচীন ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের গৌরব, ঐতিহ্য, সংগ্রাম ও সাফল্যের ৭৪তম বার্ষিকী উপলক্ষে সবাইকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় নেতারা।
১৯৪৮ সালে পতাকাবাহী সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। আগামী ৪ জানুয়ারি ২০২২ গৌরব, ঐতিহ্য, সংগ্রাম ও সাফল্যের একেকটি সিঁড়ি বেয়ে ৭৫ বছরে পদার্পণ করল।
মুজিববর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর মাহেন্দ্রক্ষণে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ শিক্ষা-শান্তি-প্রগতির মূলমন্ত্রে দীক্ষিত হয়ে গৌরবগাঁথা ইতিহাসকে সমুন্নত রাখতে এবং জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা বাস্তবায়নের পথে আরও একধাপ এগিয়ে যাবে বলে মনে করেন ছাত্রলীগের সাবেক ও বর্তমান নেতাকর্মীরা।
বাংলাদেশ ছাত্রলীগ তার দীর্ঘ রাজনৈতিক পরিক্রমায় বায়ান্নর ভাষা আন্দোলন, চোয়ান্নর প্রাদেশিক পরিষদের নির্বাচনে যুক্তফ্রন্টের বিজয়, আটান্নর আইয়ুববিরোধী আন্দোলন, শিক্ষা আন্দোলন, ৬ দফার পক্ষে গণঅংশগ্রহণের মাধ্যমে মুক্তির সনদ হিসেবে এই দাবিকে প্রতিষ্ঠা করে।
এরপর ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থানের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুকে কারাগার থেকে মুক্ত করে আনা, সত্তরের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নিরঙ্কুশ জয়লাভ এবং একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করে পরাধীন বাংলায় লাল সবুজের পতাকার বিজয় ছিনিয়ে আনতে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে।
আগামী দিনেও ভোলা জেলা ছাত্রলীগ দেশের জন্য ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে যাবে বলে জানান । তারা আরো বলেন বঙ্গবন্ধুর আদর্শে গড়া ভোলা জেলা ছাত্রলীগ সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ এর হাতকে শক্তিশালী করে সামনের দিকে এগিয়ে যাবে। বিগত দিনের মত সামনের দিকেও দল-মত নির্বিশেষে সকলের সাথে মিলেমিশে একত্রে কাজ করে যাবেন।

আমাদের ফেইসবুক পেইজ এ লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন।

Leave a Reply