বোরহানউদ্দিনে জোর করে জমি দখলের অভিযোগ

0
18
আমাদের ফেইসবুক পেইজ এ লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন।

রিয়াজ ফরাজী বোরহানউদ্দিন প্রতিনিধি:-

ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলার কাচিয়া ইউনিয়নের চকডোষ গ্রামের ৭নং ওয়ার্ডে জোর করে জমি দখলের অভিযোগ উঠেছে।

ওই গ্রামের মোঃ ছালাউদ্দিন (৩৫),মোঃ জাফর(৪২),মোঃ সাহাবুদ্দিন (৪০),মোঃ মফিজুল ইসলাম (৬০),জাকিয়া বেগম (৫৫)তাদের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ করেন মোঃ সফিজল ইসলাম (৪৫) নামের এক ব্যক্তি।

তিনি জানান –আমি ভূমিদস্যুদের হাত থেকে আত্মরক্ষার জন্য ভোলার বিজ্ঞ আদালতে আবেদন করি যাতে আমাকে বেদখল না করে,আমার গৃহ উত্তোলন না করে ,পুকুর দখল না করে গাছপালা না কাটে এবং ভিটাবাড়ি তৈরি না করে।
আবেদনের প্রেক্ষিতে সম্প্রতি আদালত ১৪৪/১৪৫ ধারা জারি করে।

আদালতের বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে ছালাউদ্দিন ও তার সহযোগীদের নেতৃত্বে গত ২৫ই সেপ্টেম্বর রাত আনুমানিক ১১ টার দিকে ৮ থেকে ১০ জন সন্ত্রাসী -দা,ছেনি ও লাঠিসোটা নিয়ে আমাদের উপর হামলা করে এবং আমাকে এলোপাথাড়ি মারধর করে।

আমাকে চিৎকার শুনে আমার স্ত্রী ও ভাতিজা এগিয়ে আসলে তাদেরকেও আক্রমণ করে এবং আমার ভাতিজার বাম হাতে কব্জিতে আঘাত করে -রক্তাক্ত করে।

এ সময় তিনি জানান -জাফর নামের এক ব্যক্তি আমার স্ত্রীর পরনের কাপড় চোপড় টেনে শ্রীলতাহানি করার চেষ্টা করে।

সফিজল ইসলাম জানান তিনি ২৬ সেপ্টেম্বর সকালে থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন ।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, বোরহানউদ্দিন উপজেলার ৫৮ নং চকঢোষ মৌজার এসএ ৫১৫,৫১৩নং খতিয়ানে ২১০১ ও ২০৯৮ দাগে ১ একর ২৭ শতাংশ জমির মধ্যে ৬৪ শতাংশ জমির মোঃ সফিজল ইসলাম ক্রয় সুত্রে মূলে মালিক হয়।
এরপর জমিটির দীর্ঘদিন তিনি নিজেই ভোগ দখল করে আসছে।
সম্প্রতি তারই প্রতিবেশী মফিজুল ইসলাম,তার ৩ সন্তান ও
স্ত্রী জমিটি তাদের দাবি করে জোরপূর্বক ভোগ দখলের চেষ্টা করে।

বিষয়টি নিয়ে আদালত যায় সফিজল ইসলাম। ফলে বিষয়টি আমলে নিয়ে আদালত সুষ্ঠ্য সমাধান না হওয়া পর্যন্ত উভয় পক্ষকে জমিতে যাওয়া থেকে বিরত রাখার জন্য ১৪৪/১৪৫ ধারা জারি করে। তিনি জানান গত ২৫ সেপ্টেম্বর মধ্যে রাতে
ছালাউদ্দিন (৩৫),মোঃ জাফর(৪২),মোঃ সাহাবুদ্দিন (৪০),মোঃ মফিজুল ইসলাম (৬০),জাকিয়া বেগম (৫৫) হঠাৎ করে সন্ত্রাসী ভাড়া করে তার পরিবারের ওপর হামলা করে এবং জমিতে নির্মান করা ঘরটি ও সন্ত্রাসীরা গুড়িয়ে দেয়।

সফিজল জানান- আমার স্ত্রীর ১ ভরি ওজনের স্বর্ণের চেইন ছিনতাই করে নিয়েছেন সন্ত্রাসী ছালাউদ্দিন।

সফিজল বলেন,তার ক্রয়কৃত সম্পত্তির উপর ভূমিদস্যু ও সন্ত্রাসীদের সহায়তায়
ইটের প্রাচীর দিয়ে দখলে নেয় মফিজুল ইসলাম ও তার ছেলেরা।
এসময় তিনি আরও বলেন,ভাড়া করা সন্ত্রাসীরা আমার পরিবারের লোকজনকে মারপিট করে কিন্তু আমরা অসহায় হওয়ায় আমাদেরকে হয়রানির উদ্দেশ্যে আমাদের নামেই উল্টো আদালতে মিথ্যা মামলা দায়ের করে এবং প্রতি মূহুর্তে প্রান নাশের হুমকি দিয়ে ও যাচ্ছেন বলে জানান তিনি।
এ বিষয়ে জানতে

অভিযুক্ত মফিজুল ইসলাম এর বাসায় সরজমিনে যাওয়া হলে মফিজুল ও তার ছেলেদেরকে পাওয়া যায়নি।

তবে মুঠোফোনে বিষয়টি অস্বীকার করেছেন অভিযুক্ত মফিজুল ইসলাম এর ছেলে ছালাউদ্দিন।

বোরহানউদ্দিন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাজহারুল আমিন বিপিএম -ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, জোর করে জমি দখল নেওয়ার বিষয়টি নিয়ে লিখিত অভিযোগ পেয়েছি এবং ঘটনাস্থলে পুলিশ ফোর্স পাঠিয়েছি,তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আমাদের ফেইসবুক পেইজ এ লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন।