ভোলায় রাতের আধারে বিদ্যালয়ে উড়ছে জাতীয় পতাকা!! প্রধান শিক্ষিকার অবহেলায়

0
19
আমাদের ফেইসবুক পেইজ এ লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন।

আমজাদ হোসেন :-
ভোলায় শিবপুরে রাতের আধারেও একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে উড়তে দেখা গেছে জাতীয় পতাকা। এনিয়ে এলাকার সচেতন মহলের ভিতর চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে। মঙ্গলবার (২২ ফেব্রুয়ারি) রাত ১১:০০ টায় সরজমিনে গিয়ে এমন চিত্র দেখা যায় ভোলা সদর উপজেলার ৭নং শিবপুর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডে ২০১নং শিবপুর কালিকীর্তি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। স্থানীয় বাসিন্দা আলামিন জানায়, করোনা ভাইরাস এর জন্য বিদ্যালয় বন্ধ। আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে ২১ ফেব্রুয়ারি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা আয়েশা বেগম কয়েকজন শিক্ষার্থী নিয়ে স্কুলে আসেন সে সময় জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন ও ফুলদিয়ে পতাকা না নামিয়ে চলে যান। সে দিন রাতেও পতাকা উড়েছে। তারপর দিন ২২ ফেব্রুয়ারি রাত ১১:০০ টায়ও দেখা যায় পতাকা উড়ছে। তখন স্কুল কর্তৃপক্ষের প্রতি এলাকার সচেতন মহলের ক্ষোভ সৃষ্টি হয়। সেখানকার স্থানীয়রা আরো জানান,এই স্কুলটিতে প্রায় সময় বিভিন্ন দিবস উপলক্ষে উড়ানো জাতীয় পতাকা বেশিরভাগ সময় রাতের পর রাত টানানো থাকে। স্থানীয়রা আরো জানান শিক্ষা ব্যবস্থা নিয়েও চলেছে তালবাহানা স্কুলে পাঠদান বন্ধরেখে প্রধান শিক্ষিকা ও তার সহকারী শিক্ষকগন স্কুলে রান্নাবাড়া করে প্রায় সময়ই পিকনিকে মেতে থাকেন এবং শিক্ষার্থীদের নিজেদের কাজে ব্যস্ত রাখেন। আরো অভিযোগ উঠছে যে এই স্কুল কমিটির সভাপতি অন্য এলাকার হওয়ায় এই বিদ্যালয় নানা অনিয়মের বিষয়টি দেখার যেনো কেউ নেই। কয়েকজন অভিভাবক জানান, স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা আয়েশা বেগম সরকারি নির্ধারিত সময়ের নিজ কর্মস্থলে না এসে প্রায় সময়ই ভরদুপুরে স্কুলে এসে খোশগল্প শেরে হাজিরা খাতায় স্বাক্ষর করে চলে যান। তাকে অনুসরণ করে স্কুলের অনন্য শিক্ষক ও কর্মচারীরাগন একই ধরনের কর্মকান্ড করায় বিদ্যালয়টিতে চরম বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হচ্ছে বলে স্থানীয়রা বিস্তর অভিযোগ তুলেছেন। জাতীয় পতাকা উড়ার বিষয়টি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা আয়েশা বেগমের কাছে জানতে চাইলে তিনি বিষয়টি স্বীকার করেন এবং স্কুলের পিওনের অবহেলায় পতাকাটি উড়ছে বলে জানান। এ বিষয়ে সদর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শিরিন সুলতানা জানান, ২০১নং শিবপুর কালিকীর্তি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে রাতে জাতীয় পতাকা উড়ছে এমন খবর পেয়ে জাতীয় পতাকা নামানোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। এ বিষয়ে তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে। পাশাপাশি বিদ্যালয় পরিদর্শনে গিয়ে তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এ বিষয়ে ভোলা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তৌহিদুল ইসলাম জানান, সরকারি নিয়ম অনুযায়ী সূর্যোদয় থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত জাতীয় পতাকা উড়ানোর নিয়ম রয়েছে। রাতে বিদ্যালয়ে পতাকা ওড়ার বিষয়টি অবমাননার সামিল। জাতীয় পতাকা উত্তোলনের আইন ভঙ্গ করা রাষ্ট্রবিরোধী কাজ। জাতীয় পতাকার সম্মান অক্ষুণ্ন রাখা আমাদের নৈতিক দায়িত্ব। এ বিষয়ে প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার সঙ্গে যোগাযোগ করে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আমাদের ফেইসবুক পেইজ এ লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন।