মহানবী (সা.) এর অবমাননার প্রতিবাদে ভোলা হাট খোলা থেকে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ

0
5
আমাদের ফেইসবুক পেইজ এ লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন।

আঃ রহিম, ভোলা:-

ভারতের ক্ষমতাসীন দল বিজেপির মুখপাত্র নুপুর শর্মা ও দিল্লি শাখার গণমাধ্যম প্রধান নবীন কুমার জিন্দাল কর্তৃক মহানবী (সা.) এর অবমাননাকর মন্তব্যের প্রতিবাদে গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ শহরে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার বাদ জুম্মা উপজেলা ইমাম ওলামা পরিষদ ও সর্বস্তরের মুসলিমবৃন্দের আয়োজনে বিক্ষোভ মিছিলটি ভোলা হাট খোলা জামে মসজিদ সামনে হতে শুরু হয়ে নতুন বাজার । মিছিলে সাধারণ মুসল্লিরাও অংশ নিয়ে প্রতিবাদ বিক্ষোভ করেন। এরপর নতুন বাজার দোয়া মুজাত অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তব্য রাখেন উপজেলা ইমাম উলামা পরিষদের সভাপতি ও ভোলা গোরস্থান মাদ্রাসার সিনিয়র শিক্ষক মাওলানা আতাউর রহমান ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ জামে মসজিদের ইমাম মিজানুর রহমান , উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস , ইমাম ওলামা পরিষদের সহ-সভাপতি হাফেজ মাওলানা ইয়াসিন নবী পুরী, সাধারণ সম্পাদক মাওলানা তরিকুল ইসলাম দপ্তর সম্পাদক হাফেজ মাওলানা মুফতি ইউসুফ ফারুকি, প্রচার সম্পাদক হাফেজ মাওলানা হারুন-উর-রশিদ সিদ্দিকী প্রমূখ।
প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা বলেন, কোন মুসলমান রাসূল (সা.) এর অপমান সহ্য করতে পারেনা। সংখ্যা গরিষ্ঠ মুসলমানের দেশে রাষ্ট্রিয়ভাবে প্রতিবাদ হওয়া প্রয়োজন। মহানবী (সা.) কে অতীতে যারা অপমান করেছেন তারা ধ্বংস হয়েছেন। নুপুর শর্মা ও নবীন কুমার জিন্দালের পরিণতিও হবে ভয়াবহ। তাদের বিচারের আওতায় এনে কঠোর শাস্তি দেওয়ার দাবি জানানো হয় সমাবেশে। বক্তাগণ রাষ্ট্রীয়ভাবে ভারতের এমন ন্যাক্কারজনক আচরণের প্রতিবাদ জানানোর দাবি জানান। ভারতের ক্ষমতাসীন দল বিজেপির দুথজন নেতা নুপুর শর্মা ও নবীন কুমার জিন্দাল কর্তৃক ইসলামের শেষ নবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) এবং উম্মাহাতুল মুমিন হযরত আয়েশা (রা.) কে অবমাননাকর মন্তব্যের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ অব্যাহত রাখার আহ্বান জানান তারা। বক্তারা বলেন, স্বাধীন মতপ্রকাশ একটি সার্বজনীন মানবাধিকার। কিন্তু নিজের এই স্বাধীনতার অপব্যবহার করে অন্যের ধর্মীয় বিশ্বাস ও অনুভূতিতে আঘাত করার কাজে নিজের মত ব্যবহার করলে সেটা মারাত্মক অপরাধ হয়। নুপুর শর্মা এবং নবীন কুমার জিন্দাল যেটা করেছেন সেটা শুধু চরম অসভ্যতাই নয়, বরং এতে কোটি কোটি মুসলমানের হৃদয়ে মারাত্মক আঘাত করা হয়েছে। এতে করে তারা ভারতীয় উপমহাদেশসহ বিশ্বব্যাপী সাম্প্রদায়িক ও জাতিগত সংঘাত ছড়িয়ে দেওয়ার মত গুরুতর অপরাধ করেছে। শুধু মুসলমানরাই নন, বরং শান্তিকামী কোন বিবেকবান মানুষ এই অপকর্মকে সমর্থন করে না।

আমাদের ফেইসবুক পেইজ এ লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন।