মান্দায় প্রসূতির মৃত্যুর ঘটনায় সেই ক্লিনিকে প্রশাসনের হানা

1
4
আমাদের ফেইসবুক পেইজ এ লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন।

নওগাঁ প্রতিনিধি :-
নওগাঁর মান্দা উপজেলার বহুল আলোচিত ফয়সাল ক্লিনিক এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে প্রসূতির মৃত্যুর ঘটনায় নড়েচড়ে বসেছে স্থানীয় প্রশাসন। বিভিন্ন দৈনিক ও অনলাইন পোর্টালে সংবাদ প্রকাশের পর ঘটনার তদন্ত শুরু করেন ইউএনও আবু বাক্কার সিদ্দিকের নেতৃত্বে একটি টিম।
এ সময় প্রসূতি আকলিমা বেগমের অপারেশনের যাবতীয় কাগজপত্র খতিয়ে দেখেন। খোঁজ নেওয়া হয় অপারেশনের চিকিৎসক ও অজ্ঞানের চিকিৎসকের বিষয়ে। কিন্তু প্রয়োজনীয় কাগজপত্র উপস্থাপন করতে ব্যর্থ হন ক্লিনিক মালিক জিয়াউর রহমান জিয়া।
এ প্রসঙ্গে ইউএনও আবু বাক্কার সিদ্দিক বলেন, বিভিন্ন দৈনিক ও অনলাইন পোর্টালে সংবাদ প্রকাশের পর ফয়সাল ক্লিনিক পরিদর্শন করা হয়েছে। এ সময় প্রসূতি আকলিমা বেগমের সিজারিয়ানের কাগজপত্র পর্যবেক্ষন করা হয়েছে। কিন্তু অপারেশন ও অজ্ঞানের চিকিৎসকের কাগজপত্র দেখাতে পারেননি ক্লিনিক মালিক। আগামিকাল মঙ্গলবার ক্লিনিক মালিককে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র উপস্থাপনের জন্য বলা হয়েছে। পরবর্তীতে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
এসময় উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. বিজয় কুমার রায় ও মান্দা থানার ওসি শাহিনুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানান, গত শনিবার বেলা ১১টার দিকে আকলিমা বেগম (৩২) নামে গর্ভবতী এক নারীকে প্রসাদপুর বাজারের ফয়সাল ক্লিনিক এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ভর্তি করা হয়। ওইদিন দুপুর আড়াইটার দিকে সিজারিয়ানের মাধ্যমে তিনি কন্যাশিশুর জন্ম দেন। কিন্তু ভুল অপারেশনের কারণে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে তাঁর অবস্থা সংকটাপন্ন হয়ে পড়ে। পরে বিকেল ৫টার দিকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে রাত ৮টার দিকে মারা যান তিনি।
স্থানীয়রা জানান, পরপর দু’বার সিজারিয়ানের মাধ্যমে আকলিমা বেগম দুই সন্তানের জন্ম দেন। এটি ছিল তাঁর তৃতীয় সিজারিয়ান। এরপরও বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ছাড়াই চরম ঝুঁকি নিয়ে আকলিমা বেগমের অপারেশন করানো হয়। সেখানে ছিল না অজ্ঞানের কোনো চিকিৎসকও। ভুল অপারেশনের কারণে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ তাঁর মৃত্যু ঘটে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় একাধিক ব্যক্তি অভিযোগ করে বলেন, ঘটনার পর ক্লিনিক সংশ্লিষ্ট একটি দালালচক্র বিষয়টি ধামাচাপা দিতে অপতৎপরতা শুরু করে। ভুক্তভোগী পরিবারকে ম্যানেজ করে মামলা থেকে এ যাত্রায় রক্ষা পান ক্লিনিক মালিক জিয়াউর রহমান জিয়া

আমাদের ফেইসবুক পেইজ এ লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন।

1 মন্তব্য

Comments are closed.